পল্টনে সাদেক হোসেন খোকার জানাজায় জনতার ঢল

noashad

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার তৃতীয় নামাজে জানা’জা নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানা’জায় অংশ নেয় দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও সর্বস্ত’রের লাখো জনতা।

এর আগে বেলা সোয়া ১১টায় জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে খোকার দ্বিতীয় জানা’জা অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে ম’রদে’হ নিয়ে যাওয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। সেখানে এই মু’ক্তিযো’দ্ধার প্রতি সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

আজ সকাল ৮টা ২৮ মিনিটে রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায় খোকার ম’রদে’হ। নয়া পল্টনে জানা’জার পর খোকার ম’রদে’হ নেয়া হয় দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে। সেখানে বেলা ৩ টায় ৪র্থ দফা নামাজে জানা’জার পর ধুপখোলা মাঠে জানা’জার জন্য নেয়া হবে।

বিকেলেই জুরাইনে দা’ফন করা হবে ঢাকার সাবেক এই মেয়রকে। ক্যা’ন্সা’রে আ’ক্রা’ন্ত খোকা নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎ’সাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় ৪ঠা নভেম্বর দুপুরে মা’রা যান। ২০১৪ সাল থেকে চিকিৎসার জন্য তিনি নিউইয়র্কে ছিলেন।

জানাজায় বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মো. শাহজাহান, শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায় চৌধুরী, রুহুল কবির রিজভী, মাহবুব উদ্দিন খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, ফজলুল হক মিলন, এমরান সালেহ প্রিন্স, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীসহ দলটির অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন

জানাজার নামাজের আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সাদেক হোসেন খোকা যে সময় মারা গেলেন তখন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যা মামলায় কারাগারে। খোকাকে শেষ দেখা তিনি দেখতে পেলেন না। আর আমরা খোকার এই অকালে চলে যাওয়ার বহু দু:খ প্রকাশ করছি।
ফখরুল বলেন, সাদেক হোসেন খোকা চলে যাওয়ায় বিএনপিতে শুন্যতা সৃষ্টি হলো তা পূরণ হওয়ার নয়। এর আগে খোকার জানাজা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়। পরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষ শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন একাত্তরের এই গেরিলা যোদ্ধাকে।

বিকেল ৩টায় ঢাকা সিটি কর্পোরেশনে মরহুমের লাশ নিয়ে যাওয়া হবে এবং সেখানে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে জানাজা শেষে মরহুমের নিজস্ব বাসভবনে লাশ নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর বাদ আছর মরহুমের বাসভবন থেকে লাশ ধুপখোলা মাঠে নিয়ে যাওয়া হবে এবং সেখানে শেষ নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। জানাজা শেষে জুরাইন কবরস্থানের বাবা-মা’র কবরের পাশে খোকাকে দাফন করা হবে।

সংসদের জানাজায় অংশ নেন ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ডক্টর কর্নেল অলি আহমদ বীর বিক্রম (অব.), তোফায়েল আহমেদ, আ স ম ফিরোজ, মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, রাশেদ খান মেনন, মশিউর রহমান রাঙা, ড. মাহবুব উল্লাহ, মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম, সাবের হোসেন চৌধুরী, শামসুল হক টুকু, ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম।

বিএনপির পক্ষে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান সিনহা, জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, জয়নুল আবদিন ফারুক, আবুল খায়ের ভূইয়া, হারুন অর রশিদ, উকিল আব্দুস সাত্তার, জাহিদুর রহমান, এম মোরশেদ খান, মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান, নাজিম উদ্দিন আলম, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, রুহুল আলম চৌধুরী, এমরান সালেহ প্রিন্স প্রমুখ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.