Breaking News

দিল্লির দূষণ নিয়ে উদ্বেগ জার্মান চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের

দুই দিনের সফরে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে এসেছেন জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল। ভারতের রাজধানী দিল্লির দূষণ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল। শনিবার দিল্লিতে ইন্দো জার্মান চেম্বার অব কমার্সের এক অনুষ্ঠানে তিনি এ উদ্বেগের কথা জানান। পরামর্শ দেন দূষণ কমানোর উপায় নিয়েও। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

দূষণ কমাতে ডিজেল চালিত যানবাহনের বদলে শহরাঞ্চলে ইলেকট্রিক বাস চালানোর পরামর্শ দেন ম্যার্কেল। ইন্দো জার্মান চেম্বারের অনুষ্ঠানের সাইডলাইনে সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে তিনি বলেন, তামিলনাড়ুতেও আমরা ২০০ মিলিয়ন ইউরো বিনিয়োগ করেছি সেখানকার বাস সেক্টরের সংস্কারের জন্য। শুক্রবার দিল্লির দূষণ যারা লক্ষ্য করেছেন, তারা এখানে ডিজেল বাসের পরিবর্তে ইলেকট্রিক বাস চা‌লানোর ব্যাপারে দাবি জানাতে পারেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ শনিবার ম্যার্কেল দিল্লির দূষণ নিয়ে কথা বলেছেন। জার্মান চ্যান্সেলর বলেছেন, গণপরিবহনগুলো কেন ডিজেলের বদলে বিদ্যুৎ দিয়ে চালানো উচিত, সেটির আদর্শ উদাহরণ দিল্লি। ভারতকে দূষণের হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তার হাত বাড়াবে জার্মানি, এমন ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি। ম্যার্কেল বলেছেন, ‘তামিলনাড়ুর গণপরিবহন খাতে সংস্কারের জন্য আমরা ২০০ মিলিয়ন ইউরো দেব। গতকাল যাঁরাই দিল্লির দূষণের অবস্থা দেখেছেন, তাঁরা সবাই বুঝবেন কেন গণপরিবহনগুলো ডিজেলের বদলে বিদ্যুৎ দিয়ে চালানো উচিত।’

গতকাল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও আঙ্গেলা ম্যার্কেলের মধ্যে বাণিজ্য, জলবায়ু খাত, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসহ বিভিন্ন খাতে পাঁচটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আজই জার্মানির উদ্দেশে রওনা হওয়ার আগে ম্যার্কেল দ্বারকা সেক্টর ২১ মেট্রো স্টেশন পরিদর্শন করবেন। ওই মেট্রো স্টেশনের সোলার প্যানেলগুলোর অর্থায়ন করেছে জার্মান সরকার।

এর আগে গতকাল ম্যার্কেল বলেছেন, অবকাঠামোগত প্রকল্প, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পানি সরবরাহ বিষয়ে ভারতের সঙ্গে কাজ করতে চায় জার্মানি। ইউরোপীয় দেশগুলোর মধ্যে জার্মানিই ভারতের সবচেয়ে বড় ব্যবসায়িক অংশীদার। ১ হাজার ৭০০টির বেশি জার্মান প্রতিষ্ঠান ভারতে বিনিয়োগ করেছে।

ম্যার্কেল বলেন, নতুন জার্মান-ভারত অংশীদারিত্বের অংশ হিসেবে জার্মানি ইলেকট্রিক বাসের মতো পরিবেশবান্ধব প্রকল্পে আগামী পাঁচ বছরে এক বিলিয়ন ইউরো বিনিয়োগ করবে। দিল্লির বায়ু দূষণ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, সরকারিভাবে জনস্বাস্থ্যজনিত আপদকালীন পরিস্থিতি ঘোষণা করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি ভবন‌ে ম্যার্কেলকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগত জানানোর সময় খালি চোখেই অনুভব করা যাচ্ছিল ধোঁয়াশা। তবে মোদি কিংবা জার্মান নেতা, কেউই দূষণের মুখোশ পরেননি।

আশপাশের রাজ্যে শস্যের বর্জ্য জ্বালানো ধোঁয়ায় ঢেকে গেছে ভারতের রাজধানীর আকাশ। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মঙ্গলবার পর্যন্ত সব স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত সব ধরনের নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখারও নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সরকারের কেন্দ্রীয় দূষণ ন‌িয়ন্ত্রণ বোর্ডের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এ বছর দিল্লিতে এটাই সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.