স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

noashad

সালমা চাঁদপুর শহরের উত্তর শ্রীরামদী মাদ্রাসা রোডের খালেক ব্যাপারীর মেয়ে এবং গফুর মিজি ফরিদগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ভাটিয়ালপুর এলাকার চির্কা চাঁদপুর গ্রামের রহমান মিজির ছেলে। চাঁদপুর শহরের রহমতপুর আবাসিক এলাকায় স্ত্রী সালমা বেগমকে (৩৮) শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামী গফুর মিজিকে (৫০) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুরের জেলা ও দায়রা জজ মো. জুলফিকার আলী খান এ রায় দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২০ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে সালমার ছোট ভাই সাইফুল ইসলাম (১৯) বোনের বাসায় আসেন। রাতের খাবার শেষে সাইফুল পাশের কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে দেরি করে গফুর মিজি বাসায় এলে তা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। পরের দিন সকাল ছয়টার দিকে সালমার ছোট ভাই সাইফুল ঘুম থেকে উঠে দেখেন, তাঁর বোনের মরদেহ মেঝেতে পড়ে আছে এবং গলায় ফাঁসের চিহ্ন আছে। তাৎক্ষণিক তিনি চাঁদপুর মডেল থানায় খবর দেন। এই ঘটনায় পরের দিন চাঁদপুর মডেল থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়।

২০১৬ সালের ৩০ জুন ময়নাতদন্ত পাওয়ার পর পুলিশ নিশ্চিত হয়, সালমাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। পরে সালমার মা রহিমা বেগম জামাতা গফুর মিজিকে আসামি করে ২০১৬ সালের ১ জুলাই একটি হত্যা মামলা করেন। সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মো. আমান উল্লাহ জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালত সাক্ষ্য-প্রমাণ ও মামলার নথিপত্র পর্যালোচনা করে আসামির উপস্থিতিতে এই রায় দেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.